আপনার আশে পাশের বিভিন্ন ঘটনা-দূর্ঘটনা, প্রকৃতি পরিবেশ ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান এর ছবি তুলে পাঠিয়ে দিন- [email protected]

আজ বিজয়া দশমী সাতক্ষীরায় যথাযোগ্য মর্যাদায় শারদীয় দুর্গোৎসবের মহানবমী উদযাপিত



মাধবদত্ত সাতক্ষীরা ঃ  যুগাবতার রামায়নের রামচন্দ্র লঙ্কা অধিপতি রাবণ বধের পর নবমী তিথিতে ১০৮টি নীল পদ্ম দিয়ে দেবী দুর্গাকে পুজা করেছিলেন। তাই বৃহষ্পতিবারের মহানবমীতে ষোড়শ উপাচারের সঙ্গে ১০৮টি নীলপদ্মে দেবী দুর্গা পুজিত হয়েছেন।
এছাড়া নবমী উপলক্ষে বিহিতপুজা, পঞ্চপ্রচারে পুজা, পুষ্পাঞ্জলী, প্রসাদ বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ছাড়া রাতে মন্ডপে মন্ডপে হোম যঞ্জের মাধ্যমে শারদীয় দুর্গাপুজা কার্যত শেষ হয়ে গেছে। শুক্রবার দর্পণ জলে দেওয়ার পর সিন্দুর খেলাসহ বিভিন্ন আনুষ্ঠিকতার মাধ্যমে বিজয়া দশমী পালিত হবে।
এদিকে আকাশ রৌদ্র ঝলমল থাকায় জেলার একপ্রাপ্ত থেকে অপরপ্রান্তে ছুটে বেড়িয়েছেন দর্শনার্থীরা। বিশেষ করে পুরাতন সাতক্ষীরা মায়ের বাড়িতে নবদুর্গাসহ ২৩০টি প্রতিমা নির্মাণ করায় বিশেষ ভিড় লক্ষ্য করা যায়। বৃহষ্পতিবার রাত ৮টায় দুর্গাপুজা উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা মন্দির সমিতির সভাপতি বিশ্বনাথ ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন সাংসদ মীর মোস্তাক আহম্মেদ রবি। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সাংসদ মুক্তিযোদ্ধা মুনুসর আহম্মদ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সাতক্ষীরা জেলা শাখার সভাপতি মন্ডলীর সদস্য গোষ্ট বিহারী মন্ডল, সাধারণ সম্পাদক স্বপন কুমার শীল, জেলা মন্দির সমিতির সাধারণ সম্পাদক রঘুজিৎ গুহ, সাংগঠণিক সম্পাদক প্রাণনাথ দাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নিত্যানন্দ আমিন প্রমুখ।  এ ছাড়া রাতে কাটিয়া মায়ের বাড়িতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেখানে দু’বাংলার বরেণ্য শিল্পীরা মণ্ডপে উপস্থিত দর্শকদের মাতিয়ে রাখে।
ধর্মের গ্লানি ও অধর্মের বিনাশ, দুষ্টের দমন ও শিষ্ঠের পালন, অসুররুপী শক্তি বধও ধর্ম প্রতিষ্ঠায় প্রতি বছর দেবী দুর্গা মর্তে আবির্ভুত হন।
প্রসঙ্গত, এবার জেলায় ৫৭৬টি মন্ডপে শারদীয় দুর্গাপুজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দুর্গাপুজা উপলক্ষ্যে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পুজা শুরর পর থকে কোথাও কোন আপত্তিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। অসুর শক্তির নিধন ও দেশবাসির মঙ্গল কামনা করে বিজয়া দশমীর দর্পণ বিসর্জন ও প্রতীমা নিরঞ্জনের মধ্যদিয়ে শারদীয় দূর্গাপূজার সমাপ্তি ঘটবে।

No comments: