আপনার আশে পাশের বিভিন্ন ঘটনা-দূর্ঘটনা, প্রকৃতি পরিবেশ ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান এর ছবি তুলে পাঠিয়ে দিন- [email protected]

সাতক্ষীরায় ঋণের যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে বটি দিয়ে নিজের গলা কেটে বৃদ্ধের আত্মহত্যা


মাধব দত্ত, সাতক্ষীরা ঃ বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন বৃদ্ধ কাজী বেলাল হোসেন। এরপর স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের নামীয় জমিসহ বাড়ি বন্ধক রেখে ব্যাংক থেকে ছেলে মারুফ সর্বশেষ সিটি ব্যাংকের সাতক্ষীরা শাখা থেকে ১৭ লাখ টাকা ঋণ নেওয়ায় দুঃশ্চিন্তা কম ছিল না তার। এমন এক পরিস্থিতিতে বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগ নিজের গলা বটি দিয়ে কেটে আত্মহত্যা করেছেন বেলাল হোসেন(৪২)।
সাতক্ষীরা শহরের মেহেরুন প্লাজার সুমাইয়া বোরখা হাউজের স্বত্বাধিকারী কাজী মারুফ হোসেন জানান, টাঙ্গাইল জেলার বাসাইল থানাধীন হাবলাবিলপত্তা গ্রামে তাদের আদি নিবাস ছিল। ৪০ বছর আগে বস্ত্র ব্যবসায়ের জন্য সাতক্ষীরায় এসে পলাশপোলের মধুমোল্লারডাঙিতে বিয়ে করেন বাবা বেলাল হোসেন।পরে মা আনোয়ারা বেগমের নামে জমি কিনে সেখানে বাড়ি তৈরি করে বসবাস শুরু করেন। এ সময় সাতক্ষীরা সদর সার্কেলের পাশে তার বাবার একটি কাপড়ের স্টল দোকান ছিল। ২০১০ সালে মেহেরুন প্লাজায় ভাই ফারুক ও তার ব্যবসা করার জন্য মায়ের নামীয় বাড়ি ও জমি বন্ধক রেখে ব্রাক ব্যাংক সাতক্ষীরা শাখা থেকে ১৬ লাখ টাকা ঋণ নেয়া হয়। ছয় লাখ টাকা পরিশোধ হওয়ার পর ঋণটি ঢাকা ব্যাংকে স্থানার করা হয়। সাত মাস আগে ঢাকা ব্যাংক থেকে ঋণ বদলী করে সিটি ব্যাংকের সাতক্ষীরা শাখায় নিয়ে এসে তার নামে ১৭ লাখ টাকা বর্ধিত করা হয়।
মাফরু হোসেন আরো জানান, বার্ধক্যজনিত কারণে বাবা বিভিন্ন রোগে ভুগলেও সম্প্রতি তিনি কিছুটা হাটাচলা করতে পারতেন। তবে ঋণ নিয়ে তার দুশ্চিন্তার শেষ ছিল না। বৃহষ্পতিবার বিকেলে তার দু’ ভাই দোকানে ছিলেন। মা আনোয়ারা বেগম মামা ডঃ মহিদার রহমানের অসুস্থ বাচ্চাকে দেখতে যান। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে বাবা মাছ কাটা বটি দিয়ে নিজের গলা নিজে কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। খবর পেয়ে তারা বাবাকে ভ্যানে করে নিয়ে প্রথমে হার্ট ফাউন্ডেশন, বুশরা হাসপাতাল, সিবি হাসপাতাল ও সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলেও কোথাও চিকিৎসা দিতে পারেননি। একপর্যায়ে রাত সাড়ে সাতটার দিকে তিনি মারা যান।
সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ মোঃ হাফিজুল্লাহ জানান, বেলাল হোসেনের গলা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কেটে ফেলায় তার খাদ্যনালী ও শ্বাসনালীর বড় অংশটাই কেটে যায়। ফলে তাকে খুলনা ৫০০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেওয়া হয়।
সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ স্বজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

No comments: