আপনার আশে পাশের বিভিন্ন ঘটনা-দূর্ঘটনা, প্রকৃতি পরিবেশ ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান এর ছবি তুলে পাঠিয়ে দিন- [email protected]

সাতক্ষীরায় আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবস উদযাপন উপলক্ষে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত।



মাধব দত্ত ,সাতক্ষীরা। “পারিবারিক আয়ে নারী অধিকার ভিত্তিক ন্যায্যতা নিশ্চিত কর” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বুধবার বেলা সাড়ে ১২ টায় আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবস ২০১৮ উদযাপন উপলক্ষে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে।

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে আন্তর্জাতিক গ্রামীন নারী দিবস উদযাপন কমিটি সাতক্ষীরা জেলা শাখা কর্তৃক আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা কমিটির উপদেষ্টা শিক্ষাবিদ আব্দুল হামিদ ও মাধব চন্দ্র দত্ত,শিক্ষাবিদ মোঃ আনিসুর রহিম, কমিটির সভাপতি চুপড়িয়া মহিলা সংস্থার সভানেত্রী মরিয়ম মান্নান, সাধারন সম্পাদক মোঃ নাজমুল আলম মুন্না, সদস্য আবু জাফর সিদ্দিকী, শ্যামল কুমার বিশ্বাস, লুইস রানা গাইন প্রমুখ। মানবন্ধনে বক্তরা বলেন গ্রামের নারীরা পরিবার, মাঠে-ঘাটে সর্বত্র কাজ করে থাকে। এছাড়া অনেক সময় পুরুষের চেয়ে বেশি কাজ করে থাকে। তবুও পায়না তাদের ন্যায্য অধিকার। তাই গ্রামীন নারীরা এখন আর পরের মুখাপেক্ষি হয়ে বেচে থাকতে চায়না। তারা নিজেরা স্বাবলম্বী হতে চায়। তারা নিজেরা কৃষিকাজ ও  ব্যবসা করে প্রতিষ্ঠিত হতে চায় কিন্তু পুরুষ শাসিত সমাজে তাদের কাজের যথাযথ মূল্যায়ন করতে চায়না কেউ । দেশে কৃষি ও ব্যাবসায়ীক  ঋণ দেওয়ার প্রচলন রয়েছে কিন্তু  ব্যাংক থেকে তাদের চাহিদা মতো সহজ শর্তে ঋণ দিতে চায়না । তারা বলেন সুযোগ সুবিধা পেলে গ্রামীণ নারীরাও কৃষি উৎপাদনসহ দেশের উন্নয়নের  কাজে আরও বেশি ভূমিকা রাখতে সক্ষম। বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা সংস্থার (বিআইডিএস) হিসাব মতে আমাদের দেশে গ্রামীণ ৪১ শতাংশ নারী আলু চাষের সঙ্গে যুক্ত এবং ৪৮ শতাংশ নারী মাছ চাষে সরাসরি জড়িত রয়েছে। এছাড়া ধান চাষে/উৎপাদনে ব্যাপক ভূমিকা থাকলেও নারীর কাজের স্বীকৃতি দিতে যতো অনিহা। গার্মেন্টস্ সেক্টরে নারী কর্মী, প্রবাসে নারী কর্মী দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করছে। সন্তান জন্ম ও লালন-পালনে রয়েছে বিশাল অবদান। নারীর এসব অর্জন  শুধু সাম্প্রতিক কালেই নয় আবহমান কাল ধরে দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছে। অথচ নারীরাই প্রতিনিয়ত মজুরি বৈষম্যের শিকার হচ্ছে। কাজেই আর নয় নারী বৈষম্য এগিয়ে যাক নারী প্রজন্ম। এই কর্মসূচীতে সাতক্ষীরাসহ দেশের সকল স্থানে সকল প্রকার নারী নির্যাতন প্রতিরোধ, নারী অধিকার প্রতিষ্ঠা, সমাজে, পরিবারে, রাস্তাঘাটে, কর্মস্থলে নারীর সমঅধিকার বাস্তবায়নের দাবি জানান।

No comments: