তালায় সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের সাত দফা মানার প্রশ্ন ওঠে না।


মাধব দত্ত, সাতক্ষীরা । সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এমপি বলেন  জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের কোনো ভবিষ্যত নেই। তাদের সাত দফা দাবিও অযৌক্তিক। কারণ এই দাবি মেনে নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।
তিনি বলেন সংবিধান অনুসারে আগামি সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তার আগে সংসদ ভেঙ্গে দেওয়া কিংবা প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের প্রশ্নই ওঠে না। বরং জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এসব দাবি তুলে নির্বাচনে আসার পথ নিজেরা রুদ্ধ করছে। তারা নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশনকে  প্রশ্নবিদ্ধ করতে চাইছেন।
মন্ত্রী রোববার বিকালে সাতক্ষীরার তালা উপজেলা পরিষদ ময়দানের শহীদ মিনার পাদদেশে ওয়ার্কার্স পার্টির সম্মেলন পূর্ব উদ্বোধনী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতা শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কেবল মাত্র সাংবাদিকদের জন্য প্রযোজ্য নয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সাইবার ক্রাইম বন্ধে এ ধরনের আইন আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন নির্বাচনের পর এ বিষয়ে আরও ভাবা হবে। তিনি বলেন আমি নিশ্চয়তা দিয়ে বলতে পারি আগামি নির্বাচনে বিএনপি জামায়াত ক্ষমতায় আসতে পারবে না। রাশেদ খান মেনন আরও বলেন নির্বাচনকালিন মন্ত্রিসভা ছোট করা না করার বিষয়টি সাংবিধানিক নয়। তারপরও প্রধানমন্ত্রী সেটি চাইলে করতে পারেন। এটা সম্পূর্ন তার নিজের এখতিয়ার। তিনি বলেন গতবারের নির্বাচনে বিএনপিকে  আনার জন্য প্রধানমন্ত্রী মন্ত্রিসভা ছোট করেছিলেন । এবার তার আর প্রয়োজন নেই।
 তালা উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টি সম্পাদক প্রভাষক সরদার রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে  উপজেলা পরিষদ চত্বরে আয়োজিত সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য এড. মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি, কেন্দ্রিয় কমিটির সদস্য দীপংকর সাহা দীপু, সাতক্ষীরা জেলা সম্পাদক উপাধ্যক্ষ মহিবুল্লাহ মোড়ল, সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য অধ্যাপক সাবীর হোসেন,  উপাধ্যক্ষ ময়নুল ইসলাম, এড. ফাহিমুল হক কিসলু, স্বপন কুমার শীল প্রমুখ নেতা।
এর আগে মন্ত্রী তালা প্রেসক্লাবে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বলেন,  বর্তমান সরকার  আমলে সংবাদপত্রের পূর্ন স্বাধীনতা রয়েছে। তবে যেখানে সাংবাদিকদের সমস্যা রয়েছে সে সমস্যা সমাধানের জন্য আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, ডিজিটাল আইন নিয়ে সাংবাদিকদের মধ্যে কিছু আপত্তি রয়েছে। আমিও তাদের সঙ্গে একমত। আমি চাই না সংবাদপত্রের কণ্ঠ রোধ করা হোক। তবে সাইবার ক্রাইম দিনে দিনে বেড়ে যাচ্ছে। এগুলো নিয়ন্ত্রণ করা দরকার। তা না হলে শুধু রাজনীতি নয়, ব্যক্তি পর্যায়েও ক্ষতির সম্মুখীন  হতে হবে।

No comments: