আপনার আশে পাশের বিভিন্ন ঘটনা-দূর্ঘটনা, প্রকৃতি পরিবেশ ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান এর ছবি তুলে পাঠিয়ে দিন- [email protected]

গোয়ালন্দে স্কুল প্রতিষ্ঠার নামে জমি দখলের অভিযোগ


গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে সৈয়দ হোসেন ইউরোপিয়ান স্কুল প্রতিষ্ঠার নামে জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে জমির মালিক আ. আজিজ আদালতে জমি জবর দখলের অভিযোগ করলে আদালতের নির্দেশে নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। সেই সাথে বিজ্ঞ আদালত অভিযুক্তদের আগামী ১৩ নভেম্বর আদালতে হাজির হয়ে কারণ দর্শাতে বলেছে।
জানা যায়, গোয়ালন্দ পৌরসভার কুমড়াকান্দি মহল্লায় আ. আজিজ তার মালিকানাধীন ৮৪ শতাংশ জমির মধ্যে ৩৩ শতাংশ জমি ৩৯ লাশ ৬০ হাজার টাকায় বিক্রি করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হন গোয়ালন্দ পৌরসভার আলম চৌধুরীর পাড়ার মজিবর রহমান ও পূর্ব উজানচর ফৈজদ্দিন মাতব্বার পাড়ার সাইফুল ইসলামের সাথে। সে অনুযায়ী গত ১৬ আগস্ট ১৫ লক্ষ টাকা প্রদান ও ৩ মাসের মধ্যে সম্পন্ন টাকা পরিশোধের চুক্তিতে গোয়ালন্দ পৌর এলাকার ৮৭ নং মৌজার উজানচর মধ্যে এসএ ৩২৫ খতিয়ান ভুক্ত ৪৭০, ৪৭২ দাগে ৮৪ শতাংশের মধ্যে ৩৩ শতাংশ জমি বায়নানামা সম্পাদন করেন।
জমির মালিক আ. আজিজ জানান, বায়নানামা সম্পাদন হওয়ার পর থেকেই প্রস্তাবিত সৈয়দ হোসেন ইউরোপিয়ান স্কুলের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম আমার জমিতে মাটি ভরাট করে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণকাজ শুরু করে দেয়। জমিটি রেজিষ্ট্রি না হওয়া পর্যন্ত নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার জন্য তাকে অনুরোধ করলেও তিনি তা কর্ণপাত না করে জবর দখল করে নির্মাণ কাজ চালিয়ে যায়। এ পরিস্থিতিতে তিনি বাধ্য হয়ে বিজ্ঞ আদালতের শরনাপন্ন হয়ে কাজ বন্ধ করেছেন। তিনি আরো বলেন, ‘বায়নানামায় নগদ ১৫ লক্ষ টাকা প্রদানের কথা উল্লেখ করা হলেও আমাকে দেয়া হয়েছে মাত্র ৬ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা। বাকি টাকা আমি এখনো হাতে পাইনি। এছাড়া আমার মোট ৮৪ শতাংশ জমির মধ্যে ৩৩ শতাংশ বিক্রির কথা বলেছি। জমির মালিক হিসেবে আমি তাদেরকে জমি বুঝিয়ে দেয়ার পার তারা কাজ শুরু করবে। কিন্তু বায়নানামা সম্পন্ন হওয়ার পরই তারা আমার জমিতে জোরপূর্বক ইচ্ছে মত নির্মাণ কাজ করে চলেছে। তাদের আচরনে আমার মনে হয়েছে জমিটি দখলের জন্যই তারা বায়নানামা করে স্কুল নির্মাণের কাজ শুরু করেছেন।
এ ব্যাপারে প্রস্তাবিত সৈয়দ হোসেন ইউরোপিয়ান স্কুলের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কোন বক্তব্য দিতে রাজি নয় বলে জানানা।

No comments: