আপনার আশে পাশের বিভিন্ন ঘটনা-দূর্ঘটনা, প্রকৃতি পরিবেশ ও সংস্কৃতি অনুষ্ঠান এর ছবি তুলে পাঠিয়ে দিন- [email protected]

পতœীতলায় গভীর নলকূপের বৈদ্যুতিক মিটার চুরি চক্রের সদস্য আটক



পরেশ টুডু, পতœীতলা (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ পতœীতলায় বরেন্দ্র বহুমূখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিএমডিএ) এর বিদ্যুৎ চালিত গভীর নলকুপের বৈদ্যুতিক মিটার সম্প্রতি একটি সংঘবদ্ধ চক্র চুরি করে সু-কৌশলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা নিয়ে ফেরৎ দেয়ার ঘটনায় ঐ সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্যকে বৃহস্পতিবার আটক করেছে পুলিশ।

জানাগেছে, গত কয়েক সপ্তাহে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বিএমডিএ’র বিদ্যুৎ চালিত নলকুপের প্রি-পেইড মিটার গুলো হঠাৎ করেই চুরি হতে শুরু করে। তবে চোরেরা সু-কৌশলে পরবর্তীতে ঐসব কৃষকদের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে বিকাশের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা দাবী করে মিটার ফেরৎ দেয়ার আশ্বাস দিলে কৃষকরা বড় অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তাদের চুরি যাওয়া মিটার গুলো ধান ক্ষেত থেকে কেউ কেউ ফেরৎ পেয়েছে বলেও জানাগেছে। এতে করে এলাকায় কৃষকদের মাঝে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এরই মধ্যে গত ২৩ অক্টোবর-১৮ মঙ্গলবার উপজেলার কাঁটাবাড়ি এলাকার মৃত মোসলেম উদ্দীনের ছেলে জহুরুল ইসলামের উপজেলার কাঁটাবাড়ি বোরাম মাঠ ও হাসেম বেগপুর এলাকায় অবস্থিত গভীর নলকূপের দুটি মিটার চুরি হয় এবং চুরি যাওয়া স্থানে পলিথিনের মধ্যে সাদা কাগজে একটি চিরকুটে ০১৮৭২৫৫৩০৯৬ নম্বর দিয়ে সেটিতে যোগাযোগ করতে বলা হয়। উক্ত নম্বরে যোগাযোগ করলে ০১৭৪৪৭০২১১৫ এই নাম্বারে বিকাশের মাধ্যমে ১০ হাজার টাকা দিলে মিটার ফেরত দেবে বলে জানানো হয়। এঘটনায় জহুরুল ইসলাম পতœীতলা থানায় একটি মামলা করে। মামলা নং- ০২, তাং- ০১/১১/২০১৮ ইং।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পতœীতলা সার্কেল তারেক জুবায়ের, পতœীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী ও ওসি-২ তদন্ত জহুরুল ইসলামের নেতৃত্বে এসআই শাহাদত হোসেন, সমেজ আলী, এএসআই রাসেদুল ইসলাম সহ সঙ্গিয় ফোর্স তদন্তের মাধ্যমে বিকাশ নম্বরের স্থান ধামইরহাট উপজেলার বীর গ্রাম বড়জুলাবাড়ি বলে জানতে পারে এবং সেখানে অভিযান চালিয়ে ঐ বিকাশ নম্বরের মোবাইল ফোনটি সহ ঐ এলাকার সিজার (১২) নামে এক কিশোর ও তার মা পারুল বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে। আটক কিশোর সিজার ও তার মা পারুল বেগম আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে জানায় সিজারের বাবা মোফাজ্জল হোসেন ঢাকায় রিক্সা চালায়। আরো জানায় বিকাশের টাকা ক্যাশ আউট করা হয় ফার্সিপাড়া থেকে। টাকা উত্তোলন করে পতœীতলা উপজেলার গাহন গ্রামের গোপাই সরদারের ছেলে মিস্টার সহ বগুড়ার আদমদিঘী ছাতিয়ান গ্রামের ছহীর উদ্দীনের ছেলে জাহান আলী ওরফে বাবুল হোসেন বাবলু।

পুলিশ তাদের জবানবন্দি অনুযায়ী বৃহষ্পতিবার রাতে উপজেলার গাহন গ্রামের মিস্টার (৪৫) কে তার বাড়ি থেকে আটক করে। আটক মিস্টারের তথ্য অনুযায়ী পতœীতলা উপজেলা গেট সংলগ্ন একটি মেস থেকে চুরি যাওয়া সরঞ্জামাদি উদ্ধার করে পুলিশ। এসময়  জাহান আলী পালিয়ে যায়।   

এব্যাপারে পতœীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ পরিমল কুমার চক্রবর্তী জানান, প্রযুক্তিগত তদন্তের মাধ্যমে পুলিশ অভিযান চালিয়ে মিটার চুরির সংঘবদ্ধ চক্রটির সদস্যকে আটক করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাকে রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করা হয়েছে। আশা করছি এই চক্রের মূল হোতাকে ধরা সম্ভব হবে। তিনি আরো জানান, পলাতক জাহান আলী পূর্বে মুখে দাড়ি রাখলেও বর্তমানে সে দাড়ি কেটে চলাফেরা করছে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।   

No comments: