Saturday, December 22, 2018

‘নৌকায় ভোট দিতে মুখিয়ে আছে মানুষ’-জিল্লুল হাকিম


মেহেদী হাসান মাসুদ:
রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও আ’লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের এমপি প্রার্থী মো: জিল্লুল হাকিম বলেছেন সকল শ্রেণি-পেশার ভোটাররা নৌকায় ভোট দিতে মুখিয়ে রয়েছেন। ৩০ তারিখের নির্বাচনে তারা নৌকায় ভোট দিয়ে সেটি দেখিয়ে দিবেন।

শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে জানতে চাইলে  একথা বলেন তিনি। 

তিনি বলেন, একাদশ সংসদ নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করেছে। ৩০ তারিখের এই নির্বাচন চ্যালেঞ্জিং হবে। স্বাধীনতা বিরোধীরাতো বসে নেই তারা নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। বিএনপি, জামায়াত চায়না দেশ উন্নত হোক। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখার লক্ষ্যে তাই আবার নৌকায় ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগ সরকার কে ক্ষমতায় আনতে হবে।

গত ১০ বছরে ধারাবাহিক ভাবে আমার রাজবাড়ী-২ আসনে যে উন্নয়ন হয়েছে তাতে করে নৌকাকে আবার ক্ষমতায় দেখতে চায় সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ। আমার নির্বাচনী এলাকার প্রায় প্রত্যেকটি রাস্তা-ঘাট, প্রত্যেক বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ, স্কুল কলেজের উন্নয়ন ও সরকারীকরণ করেছি। এলাকার আইনশৃংখলা পরিস্থিতির উন্নয়ন ঘটিয়ে জনগন শান্তিতে যাতে বসবাস করতে পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণসহ সাধারণ মানুষ যাতে সুখ-শান্তিতে বসবাস করতে পারে সে লক্ষে আমি কাজ করেছি বলেই আমার আসনের জনগন নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে মুখিয়ে আছে।

জিল্লুল হাকিম বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের দরিদ্র মেহনতি মানুষের জন্য কাজ করছে, তাদের জীবন যাত্রার মান উন্নত করতে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দিচ্ছে, বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধীসহ বিভিন্ন রকম ভাতা চালু করেছে। প্রতিটি শিশুকে সুশিক্ষায় শিক্ষাদান নিশ্চিত করতে বছরের শুরুতেই তাদের হাতে তুলে দিচ্ছে নতুন বই, যাতে করে তারা ঝরে না পড়ে এজন্য উপবৃত্তির ব্যবস্থা করে দিয়েছে। যাদের মাথা গোঁজার ঠাই নাই তাদের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করেছে। আর এসব কারণেই মানুষের হৃদয়ে রয়েছে আ’লীগ সরকার। ৩০ তারিখের নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার জন্য তরুণ ভোটাররাও অপেক্ষায় রয়েছে বলেও যোগ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত: পাংশা, বালিয়াকান্দি ও কালুখালী উপজেলা নিয়ে রাজবাড়ী-২ সংসদীয় আসন গঠিত। জিল্লুল হাকিম চারবার সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। ১৯৯৬ সালে প্রথম নির্বাচনে তিনি জাতীয় পার্টির প্রার্থীকে পরাজিত করে সাংসদ হন। পরের বার অর্থাৎ ২০০১ সালে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন নাসিরুল হক সাবু। এ নির্বাচনে তাঁর কাছে হেরে যান জিল্লুল হাকিম। তবে ২০০৮ সালের নির্বাচনে নাসিরুল হককে পরাজিত করে পুনরায় সাংসদ নির্বাচিত হন জিল্লুল হাকিম। ২০১৪ সালেও তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিত হন।

রাজবাড়ী-২ আসনটিতে আওয়ামীলীগ বিএনপি ছাড়াও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী এ্যাডভোকেট এবিএম নুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের প্রার্থী মোঃ নাজমুল হাসান, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের প্রার্থী নুর মহম্মদ ভুইয়া ও জাসদের প্রার্থী সুশান্ত কুমার সরকার প্রতিদ্বন্দিতা করছেন।

এবারের নির্বাচনে রাজবাড়ী-২ আসনের মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৬২ হাজার ৪৭৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ৩৪ হাজার ৫৪৪ জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন ২ লাখ ২৭ হাজার ৯২৯ জন।